নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » এবার টানা পরিবহন ধর্মঘটের ডাক মালিক শ্রমিকদের

এবার টানা পরিবহন ধর্মঘটের ডাক মালিক শ্রমিকদের

pic-01বুধবার সকাল ছয়টা থেকে রাঙামাটিতে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছে রাঙামাটি সড়ক ও নৌ মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। ছয় পরিবহন শ্রমিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে এবং শীঘ্রই হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাঙামাটির সড়ক ও নৌ-পথের ২০টি রুটে এই ধর্মঘটের ডাক দেয়। মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম-রাঙামাটি মোটর মালিক শ্রমিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ ধর্মঘটের ঘোষণা দেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ বলেন, হামলাকারীরা প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করলেও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। দোষীদের যতদিন পর্যন্ত গ্রেফতার করা না হবে ততদিন রাঙামাটি সড়ক ও নৌ পথে ধর্মঘট চলবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম-রাঙামাটি বাস ও মালিক সমিতির সভাপতি মাঈনউদ্দিন সেলিম, সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি হাজি মনসুর আহম্মেদ, শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি এনামুল হক, সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম, অটোরিক্সা চালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনোরঞ্জন বড়–য়া।

সমিতির নেতৃবৃন্দ কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই দুপুর একটায় সংবাদ সম্মেলনের ডাক দেয়। সংবাদ সম্মেলন সমিতির সভাপতি মাঈনুদ্দিন সেলিম একটি মিছিল নিয়ে জেলাপ্রশাসক কার্যালয় গিয়ে তাঁর সাথে বৈঠক করে ২৪ ঘন্টা সময় বেঁধে দেওয়ার কথা বললেও সমিতির কার্যালয়ে এসময় শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ও শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে পড়েন। তারা যতক্ষণ পর্যন্ত আসামিদের গ্রেফতার করা হবে না ততক্ষণ পর্যন্ত ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তে অনড় থাকেন। এতে মালিক সমিতি ও শ্রমিক সমিতির নেতৃবৃন্দ দুইভাগে ভাগ হয়ে পড়েন। শেষপর্যন্ত শ্রমিকদের আন্দোলনের মুখে মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়ন যতক্ষণ পর্যন্ত আসামিদের গ্রেফতার করা না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। এসময় উত্তেজিত শ্রমিকদের সামনে মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দকে অসহায় থাকতে দেখা যায়। এবং শেষ পর্যন্ত শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক খোরশেদুল আলম কর্মসূচির ঘোষণা দেন।pic-02

এ ঘটনায় রাঙামাটি শ্রমিক ইউনিয়নের রায়খালী শাখার সভাপতি মোঃ ইসহাক বাদি হয়ে মঙ্গলবার কোতয়ালী থানায় নয়জনের বিরুদ্ধে এবং অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। নয় আসামি হলোঃ শফি সওদাগর, নূর মোহাম্মদ, মঞ্জুর হোসেন, সাগর, আবুল কালাম, হাফিজুল, অঞ্জন কুমার দাশ, সজল দাশ ও শহীদ।

মামলার বিবরণে বাদি জানান, মঙ্গলবার রাত নয়টায় পুরাতন বাস স্ট্যান্ডের নোয়াখালী হোটেলের পূর্ব পাশে জাহাঙ্গীর ড্রাইভার গাড়ির চাকা মেরামত করার সময় সাগরের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এতে এক পর্যায়ে শফি সওদাগরের নেতৃত্বে অন্যান্য আসামিরাও ধারালো অস্ত্র দিয়ে সাগরের ওপর হামলা চালায়। এসময় শ্রমিক প্রদীপ, সজল, আব্দুল মান্নান, রফিক, মামুন ও মঞ্জরুল জাহাঙ্গীর ড্রাইভারকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরকেও ধারালো অস্ত্র আঘাত করা হয়। বর্তমানে প্রদীপ ও মামুনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকী চারজন রাঙামাটি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ এ ঘটনায় মঞ্জুর হোসেন নামে একজন আসামিকে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনায় মঙ্গলবার সকাল থেকে রাঙামাটিতে বাস ধর্মঘট পালিত হচ্ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply