নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » এবার অপেক্ষা ফুরোবে খাগড়াছড়িবাসির !

এবার অপেক্ষা ফুরোবে খাগড়াছড়িবাসির !

khagra-1১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর ঐতহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি সাক্ষর হওয়ার পর গঠিত হয় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়। শুরুতেই মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পান প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা ও খাগড়াছড়ি জেলা থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য কল্পরঞ্জন চাকমা। একটি নতুন মন্ত্রনালয়ের শুরুতেই নিজ জেলা খাগড়াছড়ি থেকে মন্ত্রী পাওয়ায় নিজেদের ভাগ্যবান ভাবা স্বাভাবিক খাগড়াছড়িবাসির। কিন্তু নিয়তির কি নির্মম পরিহাস মাত্র দুইবছর পরেই ২০০১ সালের নির্বাচনে পরাজিত হওয়া আওয়ামী লীগের ভাগ্যে মন্ত্রী নিয়োগ দেওয়া সম্ভব না হলেও বিজয়ী বিএনপি উপমন্ত্রী দেয় রাঙামাটি থেকে নির্বাচিত মনিস্বপন দেওয়ানকে। এরপর ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলেও প্রতিমন্ত্রী হন রাঙামাটির দীপংকর তালুকদরাই। দীর্ঘ একযুগ পর আবার খাগড়াছড়িবাসি সামনে মন্ত্রীত্ব পাওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার বিজয়ে।

দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও পাদপ্রদীপের আলোয় আসতে পারছিলেন না কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা । ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের বিজয়ের পর তিনি দায়িত্ব পান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের। সেখানে দায়িত্ব নিয়েই শুরু করেন রাজনীতিতে নিজের মেধা আর প্রজ্ঞা ব্যবহারের কাজ। এরই অংশ হিসেবে দলের সংসদ সদস্য ও শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান যতীন্দ্রলাল ত্রিপুরাকে দলীয় কাউন্সিলে সরাসরি ভোটে পরাজিত করে দায়িত্ব পান জেলা সভাপতির। আর জেলা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর তার জন্য সবচে বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করা। খাগড়াছড়ি আওয়ামী লীগের ‘কর্ণধার’ দাবি করা সাধারন সম্পাদক জাহেদুল আলম ও সংসদ সদস্য যতীন্দ্রলাল ত্রিপুরা দুজনই কাকতালীয়ভাবে তখন দেশের বাইরে আর প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে চ্যালেঞ্জ করে আঞ্চলিক দল ইউপিডিএফ এর কর্মসূচী ও বাধা প্রদানের মধ্যেই বিশাল জনসভা সফলভাবে আয়োজন করে চমক দেখান কুজেন্দ্রলাল। তার কাজে খুশি হন খোদ প্রধানমন্ত্রীও।
আর সর্বশেষ নির্বাচনে শেখ হাসিনা ও তার প্রতি আস্থার প্রতিফলন দেখান যতীন্দ্রকে বাদ দিয়ে তাকে মনোনয়ন দিয়ে। পরে খাগড়াছড়ি আসনে মহাজোটের পক্ষে সোলায়মান আলম শেঠ মনোনয়ন পেলেও ভাগ্যের শিকেয় মনোনয়ন প্রত্যাহারের আবেদন বাতিল না হওয়ায় নির্বাচনী লড়াইয়ে টিকে যান কুজেন্দ্র। শুরু হয় তার নতুন লড়াই। আর এ লড়াইয়েও শক্ত প্রতিদ্বন্ধি প্রভাবশালী আঞ্চলিক দল ইউপিডিএফ এর সভাপতি প্রসিত বিকাশ খীসা ও মহাজোটের জাতীয় পার্টির প্রার্থী সোলায়মান শেঠকে বিশাল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে বিজয়ী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা।

তার বিজয়ের পর স্থানীয় সাধারন মানুষ,আওয়ামী লীগ নেতা কর্মী ও বিশিষ্টজনদের প্রত্যাশা তার হাত ধরেই আবার খাগড়াছড়িতে ফিরছে ক্ষমতার কেন্দ্র। খাগড়াছড়িবাসির দাবি পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী করা হোক কুজেন্দ্রকে। কিংবা তা করা না হলেও দায়িত্ব দেয়া হোক পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের। বিগত বিএনপি সরকারের আমলে উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্ব খাগড়াছড়ির সাংসদ ওয়াদুদ ভূঁইয়াকে দেয়া হলেও আওয়ামী লীগ আমলে কখনই তা দেয়া হয়নি খাগড়াছড়ি থেকে,অথচ পার্বত্য তিন জেলার উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে এই প্রতিষ্ঠানটি।

প্রত্যাশার কথা শোনালেন খাগড়াছড়ির বিশিষ্ট নারী নেত্রী শেফালিকা ত্রিপুরা। তিনি বলেন, খাগড়াছড়ি থেকে নব নির্বাচিত এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরাকে পার্বত্য মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই। পার্বত্য এই জেলা দীর্ঘদিন মন্ত্রীত্বশূণ্য,আমরা এবার আমাদের জেলা থেকে মন্ত্রী চাই। kujendra

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)র খাগড়াছড়ি জেলা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. সুধীন কুমার চাকমা বলেন, এখানে আমরা কাকে চাই তা মুখ্য নয়। মুখ্য হলো সরকার কাকে চায়। আর পার্বত্য মন্ত্রী বানানোর বিষয়টি নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রীর উপর। তবে অবশ্যই আমরা খাগড়াছড়ির উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি হয়,এমন দায়িত্বে আমাদের নবনির্বাচিত এমপিকে দেখতে চাই।

সতর্ক আশাবাদ জানিয়ে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলম বলেন, পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী কাকে বানালে ভালো হয় এটি প্রধানমন্ত্রী ভালো বুঝবেন। তিনি নিশ্চই যোগ্য ব্যক্তিকে এই পদে দেবেন।

তবে খাগড়াছড়ির বিভিন্নস্তরের মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেলো,তারা পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের প্রথম ত্রিপুরা মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরাকে। যদি কোন কারণে তাও সম্ভব না হয়,তবে তাকে যেনো পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয়া হয়,এমন দাবি তাদের। এখন অপেক্ষার পালা,কি সিদ্ধান্ত নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,তা দেখার।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বেইলি সেতু ভেঙে রাঙামাটি-বান্দরবান সড়ক যোগাযোগ বন্ধ

রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলায় রাঙামাটি-বান্দরবান প্রধান সড়কের সিনামা হল এলাকার বেইলি সেতু ভেঙে পাথর বোঝাই ট্রাক …

Leave a Reply