নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » ‘এখনো স্বাধীনতা বিরোধীরা তাদের ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে’

‘এখনো স্বাধীনতা বিরোধীরা তাদের ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে’

alg-pic-14-12-14‘যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে বেগম খালেদা জিয়ার জনসভার পর জনসভা করছেন’ উল্লেখ করে সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেছেন, সরকারবিরোধী আন্দোলন করলেও মুলত এসব জনসভা যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার জনসভা। তিনি বলেন, প্রত্যেক জনসভায় যেভাবে যুদ্ধাপরাধীদের সংগঠন জামায়াত ইসলাম বিভিন্ন ফেস্টুন ও ব্যানার হাতে দাবিসহ জামায়াত নেতারা বক্তব্য দেন তাতে প্রমাণ হয় তাদের জনসভার উদ্দেশ্য। তিনি বলেন, যত ষড়যন্ত্র করা হোক না কেন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাংলার মাটিতে হবেই। ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর দেশের যে সমস্ত বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করা হয়েছিল তাদের শ্রদ্ধা জানাতে বিএনপি নেতাদের শহীদ বেদিতে দেখা যায় না, অথচ তারা নিজেদের মুক্তিযোদ্ধার দল হিসেবে দাবি করে।

দীপংকর তালুকদার বলেন, এখনো স্বাধীনতা বিরোধীরা তাদের ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে, তারা এখনো যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে বিভিন্ন ধংসাত্মক কাজ করে দেশের গণতন্ত্রকে রুখতে চায়, তাদের ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যেতে হবে। শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে রোববার বিকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এসব কথা বলেন।

রাঙামাটি বুদ্ধিজীবি দিবস পালন কমিটির আহবায়ক রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সন্তোষ কুমার চাকমার সঞ্চালনায় আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি মহিলা সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু, রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মোঃ মুছা মাতব্বর, রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা হাজি মোঃ কামাল উদ্দিন, দৈনিক গিরিদর্পণ সম্পাদক সাংবাদিক একেএম মকছুদ আহমদ, রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মোঃ আলী প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, জাতিকে মেধাশুন্য করতে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর দেশের বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করা হয়। পশ্চিম পাকিস্থানিরা যখন বুঝতে পেরেছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালি জাতি স্বাধীনতা লাভের দ্বারপ্রান্তে, ঠিক তখন স্বাধীনতা বিরোধিরা এদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের হত্যা করার জন্য ১৪ ডিসেম্বরকে বেছে নেয় এবং সে পরিকল্পনা অনুযায়ী বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করা হয়।

এর আগে সকালে শহীদ বুদ্ধিজীবি হত্যা দিবস উপলক্ষে রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় হতে শহীদ মিনার পর্যন্ত শোক র‌্যালি এবং বঙ্গবন্ধু ও শহীদ বুদ্ধিজীবিদের স্মরণে শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply