নীড় পাতা » ফিচার » ক্যাম্পাস ঘুড়ি » এক ব্যানার নিয়ে রাঙামাটি কলেজ ক্যাম্পাসে তুলকালাম !

এক ব্যানার নিয়ে রাঙামাটি কলেজ ক্যাম্পাসে তুলকালাম !

Rangamati-COllegeএকটি ডিজিটাল ব্যানার আর সেই ব্যানারে ‘দল বদলকারি’ এক ছাত্রনেতার ছবি দেয়াকে কেন্দ্র করে রাঙামাটি সরকারি কলেজে শনিবার বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ও জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে অনভিপ্রেত তুলকালাম ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার কলেজের সাপ্তাহিক মিছিল সমাবেশের দিন। এদিন সকালে ছাত্রলীগ কর্মীরা মিছিল বের করে ক্যাম্পাসে ঝোলানো ছাত্রদলের একটি ডিজিটাল ব্যানার নামিয়ে পুড়িয়ে ফেলে। ছাত্রলীগ নেতাদের অভিযোগ, ছাত্রদল ইচ্ছাকৃতভাবে ঝামেলা সৃষ্টি করার জন্য আমাদের কর্মী দীপংকর এর ছবি সহ ডিজিটাল ব্যানার টানিয়েছে,অথচ দীপংকর আমাদের সংগঠনের কর্মী। ছাত্রদলের অভিযোগ,ব্যানার কোন ইস্যু নয়, বিনা কারণেই কলেজের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করে আমাদের মিছিল করতে না দিয়ে ছাত্রদলের সাংগঠনিক কাজে বাধা সৃষ্টি করতেই ছাত্রলীগ এটা করেছে।

রাঙামাটি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল জব্বার সুজন জানিয়েছেন, আমাদের কর্মী দীপংকর,সে আগে ছাত্রদল করলেও কয়েকমাস আগেই আমাদের ছাত্রলীগে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান করে এবং নিয়মিত আমাদের দলীয় কর্মসূচীতে অংশ নিচ্ছে। কিন্তু তারপরও ছাত্রদল তার ছবি সম্বলিত ব্যানার টানিয়ে রেখেছে কলেজে। আমরা বারবার তাদের অনুরোধ করলেও তারা ব্যানারটি নামায়নি। তাই শনিবার আমাদের কয়েকজন ক্ষুদ্ধ কর্মী ব্যানারটি নামিয়ে পুড়িয়ে ফেলেছে মাত্র। তিনি দাবি করেন,দেশের বিরাজমান পরিস্থিতির কারণেই আমরা ছাত্রদলকে ক্যাম্পাসে মিছিল সমাবেশ করতে বারণ করেছি।

অন্যদিকে কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি ইমরান চৌধুরী সুজন অভিযোগ করেন,শনিবার সব ছাত্র সংগঠন নিয়মিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে কলেজে মিছিল সমাবেশ করার প্রস্তুতি নেয়,আমরাও মিছিল বের করার উদ্যোগ নেই। কিন্তু এদিন ছাত্রলীগ বিপুল সংখ্যক বহিরাগত নিয়ে আসে কলেজে এবংকোন কারণ ছাড়াই আমাদের মিছিল করতে নিষেধ করে। এক পর্যায়ে তারা বিনা উস্কানীতেই কলেজে আমাদের ব্যানার-ফেস্টুন-পোস্টার নামিয়ে ছিঁড়ে ফেলে এবং তাতে আগুন ধরিয়ে দেয়। আমরা তাই ঝামেলা এড়াতে মিছিল করিনি এবং বিষয়টি অধ্যক্ষ মহোদয়কে জানিয়েছি। তিনি ছাত্রলীগের ‘অগনতান্ত্রিক’ আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

ঘটনার পরপরই পুলিশ ক্যাম্পাসে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং আর কোন অনভিপ্রেত ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়েছেন কোতয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ মনু সোহেল ইমতিয়াজ।

ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের সূত্রগুলো জানিয়েছেন, কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র দীপংকর একসময় ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলো,কিন্তু মাসকয়েক আগেসে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদারের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে ছাত্রলীগে যোগ দেয় । তাকে নিয়ে এর আগেও ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের মধ্যে একাধিকবার টানা হেঁচড়ার ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ জেলা ছাত্রদল এক বিবৃতিতে দীপংকরকে সংগঠন থেকে ‘বহিষ্কার’ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply