নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » একটি সেতুর জন্য…

একটি সেতুর জন্য…

DSC03265রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় একটি পাঁকা ব্রিজের অভাবে বাঁশের সাঁকো দিয়ে ঝুঁকিতে যাতায়াত করেন পাঁচ ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার আটারকছড়া ইউনিয়নের করল্যাছড়ি বাজার ও ডানে আটারকছড়া গ্রামের প্রায় একশত পঞ্চাশ ফুট দুরত্ব খালের উপর বাঁশের সাঁকো বানিয়ে যাতায়াত করছেন আটারকছড়া ইউনিয়নের অধিকাংশ বাসিন্দা।

শুধু তাই নয়, এইসব ওয়ার্ডের কয়েক শত কোমলমতি শিশুরাও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই সাকোঁ দিয়ে প্রতিনিয়ত বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করে থাকে। সাকোঁ পার হতে গিয়ে শিশু সহ অনেক বৃদ্ধরা দূর্ঘটনার শিকার হয়েছেন বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

করল্যাছড়ি এলাকার বাসিন্দা মোঃ ইউসুফ বলেন, গত বছর আমার বড় ছেলে রবিউল হাসান(৮)এই সাঁকো পার হওয়ার সময় পানিতে পড়ে গিয়ে মারা গেছে। ছাত্রছাত্রীরা স্কুলে যাওয়ার সময় অনেকবার এই সাঁকো থেকে পড়ে গেছে।

করল্যাছড়ি আরএস উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী তানিয়া আক্তার জানায়, এই সাকোঁ দিয়ে পার হয়ে প্রতিদিন আমি স্কুলে আসি। এতে আমার জামাকাপড় ভিজে যায়। ঝড় বৃষ্টির দিন বা বর্ষাকালে এই সাকোঁ পার হয়ে আসাতে আমাদের ভয় লাগে। এখানে একটা ব্রিজ হলে আমাদের অনেক উপকার হতো।

এলাকাবাসি জানায়, বর্ষার মৌসুমে যখন লেকের পানি বৃদ্ধি পায় তখন নৌকা দিয়ে পারাপার হতে হয়। আর শুষ্ক মৌসুমে লেকের পানি কম থাকলে তখন বাঁশের সাকোঁ বানিয়ে যাতায়ত করা হয়। গত এক যুগ ধরে স্থানীয়রা একটি ব্রিজের জন্য বিভিন্ন জায়গায় ধর্ণা দিয়েও কোন লাভ হয়নি।

করল্যাছড়ি বাজার সংলগ্ন ও ডানে আটারকছড়া খালের উপর ১শ ফুট লম্বা একটি ব্রিজ তৈরী করা হলে পাঁচ ওয়ার্ডের প্রায় দুইহাজার পরিবারের তাদের যাতায়াতের ব্যবস্থা সহজতর হবে বলে এলাকাবাসি জানিয়েছেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply