নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » ঈদের নামাজ শেষে মুসল্লিদের শুভেচ্ছা বিনিময়

ঈদের নামাজ শেষে মুসল্লিদের শুভেচ্ছা বিনিময়

খাগড়াছড়িতে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের নামাজ আদায় করেছে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। সকাল সাড়ে ৮টায় জেলা শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ্ ময়দানে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় শাহী জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মো. আব্দুল নবী হাক্কানী’র ইমামতি করেন।

এতে অংশ নেয় জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকার হাজারো মানুষ। পরে পাহাড়ের বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের মাঝে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিসহ দেশবাসীর সুখ-শান্তি, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কমানায় মোনাজাত করা হয়। নামাজ শেষে মুসল্লিরা একে-অপরের সাথে কোলাকুলি করে পবিত্র ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

ঈদগাহ্ ময়দানে ঈদের প্রথম জামাতে জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শানে আলমসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ অংশ নেন। নামাজ শুরুর আগে খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার পক্ষে ঈদের শুভেচ্ছা জানান জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম। ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের নিরাপত্তা ও ঈদের নামাজ নির্বিঘ্নে করতে ঈদগাহ ও আশে পাশের স্থানে মোতায়েন ছিলো বাড়তি পুলিশ।

কেন্দ্রীয় ঈদগাহে প্রথম নামাজের পরপরই পুরাতন পুলিশ লাইন্স জামে মসজিদ, শালবন মসজিদ, খেজুর বাগান জামে মসজিদ, গাউছিয়া মসজিদ, শান্তিনগর মসজিদ, কুমিল্লা টিলা জামে মসজিদ ও মোহাম্মদপুর জামে মসজিদসহ ২৮টি স্থানে পবিত্র ঈদ উল ফিতরের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া জেলার দীঘিনালা, পানছড়ি, মহালছড়ি, মাটিরাঙ্গা, রামগড়, মানিকছড়ি, গুইমারা ও লক্ষ্মীছড়িতে পৃথক পৃথকভাবে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে খাগড়াছড়ি জেলাসহ দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম ও পৌর মেয়র রফিকুল আলম।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিদ্যুৎ সুবিধাবঞ্চিত মহালছড়ি সদরের ২ গ্রামের মানুষ

আধুনিক প্রযুক্তির ক্রমবিকাশে পাল্টে যাচ্ছে দুনিয়া। প্রতিনিয়ত উদ্ভাবন হচ্ছে নতুন নতুন আবিষ্কার। মানুষের জনজীবনে পড়ছে …

Leave a Reply