নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » ইট ভর্তি ট্রাকের নিচে অবৈধ কাঠ আটক করেও ছেড়ে দিলো পুলিশ

ইট ভর্তি ট্রাকের নিচে অবৈধ কাঠ আটক করেও ছেড়ে দিলো পুলিশ

Matiranga-Kath-Pic-1খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় পুলিশের হাতে আটক হওয়া অবৈধ কাঠ বোঝাই ট্রাক আটকের এক ঘন্টার মধ্যেই ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। শনিবার রাতে মাটিরাঙ্গা থানায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।
জানা গেছে, মাটিরাঙ্গা হতে ইটের নীচে করে অবৈধ কাঠ বোঝাই একটি ট্রাক (ট্রাক নং-ঢাকামেট্রো-১৬-৪৬৭৫) পাচার কালে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ মাটিরাঙ্গা বাজার থেকে আটক করে। আটকের পর ট্রাকটি থানায় নিয়ে গেলে স্থানীয় প্রভাবশালীদের মধ্যস্থতায় মোটা অঙ্কের আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে ট্রাকটি ছেড়ে দেয় পুলিশ।
বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে, ঢাকামেট্রো-১৬-৪৬৭৫ নং ট্রাকটি সবসময়ই অবৈধ কাঠ পাচারসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক, অবৈধ রাবার পাচার কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে। ট্রাকটির মালিক কে জানা না গেলেও ট্রাকটির চালক মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: নুরুল ইসলাম পিসির ছেলে মো: দেলোয়ার হোসেন। এ চালকের বিরুদ্ধে ইতিপুর্বে মাদক পাচারের অভিযোগে মামলাও রয়েছে।
অবৈধ কাঠ বোঝাই ট্রাক আটকের সংবাদটিকে অস্বীকার করে মাটিরাঙ্গা থানার ওসি বলেন, ট্রাকটি একটি মোটর সাইকেলকে ্এক্সিডেন্ট করলে পুলিশ সেটাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তিনি ট্রাকে অবৈধ কাঠ থাকার কথা অস্বীকার করলেও সাংবাদিকদের সামনে ট্রাকে অবৈধ কাঠ আছে কিনা তা দেখাতে রাজি হননি। এদিকে ইট বোঝায় ট্রাক তাৎক্ষনিক ছেড়ে দেয়ার কথা বললেও ট্রাকটি পুলিশ হেফাজতে ছিল। পরে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য মাটিরাঙ্গা হাসপাতালে গেলে, সেদিন কোন মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার রোগীকে ভর্তি বা প্রাথমিক চিকিৎসা করা হয়নি বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে। অবশ্য পুলিশ একটি দুর্ঘটনা সম্পর্কিত ডায়েরী করেছে বলে জানা গেছে। তবে একটি সুত্রে জানা গেছে, অবৈধ কাঠ বোঝাই ট্রাক আটকের পর থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় থানা টিলা ওঠার সময় বিপরিত দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার মুখে পড়ে। এতে মোটরসাইকেল চালক স্থানীয় এক মসজিদের ইমাম মৌলভী মো: জামাল হোসেন সামান্য আহত হন। তবে তিনি কোন অভিযোগ করেননি।
প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরে মাটিরাঙ্গা উপজেলার আন্ত:সড়কে অবাধে চলছে অবৈধ কাঠ পাচার। একটি শক্তিশালী অবেধ কাঠ পাচার সিন্ডিকেট মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের সহায়তায় পাচার কাজ চালিয়ে আসছে। ফলে উজাড় হয়ে যাচ্ছে বনাঞ্চল। হারিয়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক পরিবেশ। পারমিটবিহনী কাঠ পাচাররোধে মাঠে সেনাবাহিনী থাকলেও তাদের চোখ ফাকি দিয়ে পুলিশের সহযোগীতায় পাচার হচ্ছে মুল্যবান কাঠ।
পাচার হতে যাওয়া অবৈধ কাঠগুলো অবেধ কাঠ পাচার সিন্ডিকেটের সদস্য মো: আনোয়ার হোসেন ও বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান এর বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছিুক কাঠ বোঝাই কাজে নিয়োজিত শ্রমিক সুত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply