নীড় পাতা » পাহাড়ের রাজনীতি » ‘ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও গণবিরোধী সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধের দাবি’

‘ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও গণবিরোধী সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধের দাবি’

PCJSS-Flagপার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি ‘চুক্তিবিরোধী ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের’ কর্তৃক সোহেল চৌধুরী নামে এক গ্রামবাসীকে গুলি করে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। পাশাপাশি নির্বাচনের পূর্বে ও পরে খাগড়াছড়িসহ বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থক গ্রামবাসী ও কর্মিদের উপর ইউপিডিএফ ‘সন্ত্রাসীদের’ কর্তৃক হত্যা, অপহরণ ও নির্যাতন চালানোর ঘটনায়ও তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটি।
সংগঠনের সহতথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা সাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সোহেল চৌধুরী পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী উষাতন তালুকদারের পক্ষে প্রচারণার সময় নিজ এলাকায় সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। এজন্য নির্বাচনের পূর্বে ও পরে ইউপিডিএফের পক্ষ থেকে মোবাইলে একাধিকবার তাকে হুমকী দেয়া হয় বলে জানা যায়।’

বিবৃতিতে জনসংহতি সমিতি দাবি করে, ‘গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর ইউপিডিএফ কর্তৃক প্রতিপক্ষ প্রার্থীর সমর্থক ও কর্মিদের উপর এহেন ন্যাক্কারজনক হামলা, হত্যা, অপহরণ ও নির্যাতনের ঘটনা ‘কাপুরুষোচিত ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড’ ছাড়া আর কিছু নয়। ’
পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি অবিলম্বে এই ‘ইউপিডিএফ সন্ত্রাসীদের’ গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান এবং ‘গণবিরোধী’ ইউপিডিএফের সকল প্রকার সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধের ব্যবস্থা করে পার্বত্য অঞ্চলে গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিত করার জোর দাবী জানিয়েছে।

বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়, ‘ইউপিডিএফ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কেবল খাগড়াছড়িতে ১ জনকে হত্যা, ৯ জনকে অপহরণ, ৪ জনকে মারধর করে ও ১ জনকে মৃত্যুর হুমকি এবং রাঙ্গামাটির লংগদুতে ১ জনকে অপহরণ ও অমানবিক নির্যাতনের পর ছেড়ে দেয়।’

বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘১৫ জানুয়ারি রাতে কাউখালী উপজেলার সদর ইউনিয়নের কচুখালী গ্রামের বাসিন্দা জনসংহতি সমিতির সমর্থক সোহেল চৌধুরী (৪৮) পীং- মৃত কংজয় কার্বারীকে নিজ বাড়িতে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করে ইউপিডিএফ। জানা যায়, হাপানির রোগী সোহেল চৌধুরী ঐ সময় বাড়িতে চুলার পাশে বসে আগুন পোহাচ্ছিলেন। এমন সময় একজন সন্ত্রাসী এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে পালিয়ে যায়। এতে তার পায়ের হাটুর নীচে গুলি বিদ্ধ করলেও তিনি প্রাণে বেঁচে যান। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রামের মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে দুর্যোগ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

রাঙামাটির লংগদুতে উপজেলা পর্যায়ে ‘দুর্যোগবিষয়ক স্থায়ী আদেশাবলী (এসওডি)-২০১৯’ অবহিতকরণ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার লংগদু …

Leave a Reply