নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » আলোচিত লক্ষীছড়ির চ্যালেঞ্জের নির্বাচন আজ

আলোচিত লক্ষীছড়ির চ্যালেঞ্জের নির্বাচন আজ

laxichari-coverrনানা নাটকীয়তা, আঞ্চলিক দলগুলোর নানান বাধাঁ-হুমকিসহ অজানা আতংক আর শংকার মধ্যে আজ ২৭ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে খাগড়াছড়ির লক্ষীছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। নানা কারণে আলোচিত এই উপজেলার নির্বাচনের দিকে দৃষ্টি সবার। এই উপজেলার নির্বাচন যেন শান্তিপুর্ণ হয় এই জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকেও সর্বোচ্চ সতর্ক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
নির্বাচনী লড়াইয়ে তিন পদে মোট ৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন চাইথোয়াই অং মারমা ‘মোটরসাইকেল’ (আওয়ামীলীগ), সুপার জ্যোতি চাকমা ‘আনারস’ (ইউপিডিএফ), স্বপন চাকমা ‘দোয়াত-কলম’ (স্বতন্ত্র), মাইনুল ইসলাম ‘ঘোড়া’ (স্বতন্ত্র) ও নীল বর্ন চাকমা ‘কাপ-পিরিচ’ (স্বতন্ত্র)। ভাইস চেয়ারম্যান পদে অংগ্যপ্রু মার্মা পেয়েছেন ‘চশমা’ (স্বতন্ত্র) ও রতন বিকাশ চাকমা ‘টিউবওয়েল’ (আ.লীগ)। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেবী রাণী বসু পেয়েছেন ‘পদ্ম ফুল’ ( স্বতন্ত্র) ও সুমনা চাকমা ‘তীর-ধনুক’ (স্বতন্ত্র)।
এই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে আতংকে ভুগছেন স্থানীয়রা। কারণ একটি আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে নিজেদের প্রার্থীকে জয়ী করার জন্য হুমকি দেয়াসহ বল প্রয়োগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পরও নির্বাচন করছেননা লক্ষীছড়ি জিয়া পরিষদের সহসভাপতি নীল বর্ণ চাকমা (কাপ-পিরিচ)। তিনি বলেন, নির্বাচন করার ইচ্ছা ছিলো। কিন্তু লক্ষীছড়ির রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারনে আমি সরে দাড়িঁয়েছি।

আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক সাথোয়াইঅং মার্মা (মোটরসাইকেল) জানান, বাধা-হুমকি উপেক্ষা করে যতটুকু সম্ভব প্রচার প্রচারনা চালিয়েছি। এখন জনগনের রায়ের অপেক্ষায় আছি। আমার বিশ্বাস যদি নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয় তাহলে আমার জয় নিশ্চিত। এছাড়া ৫ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে স্বপন চাকমার সমর্থকরা জানিয়েছেন, তাকে নির্বাচন হতে দূরে রাখতে ‘শ্রমন’ হিসেবে থাকতে বাধ্য করা হয়েছে।

এর আগে মনোনয়নপত্র দাখিল করেও প্রত্যাহার করে নেন আওয়ামীলীগ সমর্থিত উপজেলা চেয়ারম্যান রে¤্রাচাই চৌধুরী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান দশরত তালুকদার, সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দেবরানী চাকমা ও মংক্যচিং চৌধুরী। তিন জনেই মুখ না খুলে শুধু অসুস্থতা বা মানসিকভাবে প্রস্তুত নন,এমন মন্তব্য করেছেন !

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মো: শওকত ওসমান জানান, নির্বাচন নিয়ে লিখিত কোন ধরনের অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তিনি শান্তিপূর্নভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

পার্বত্য চট্টগ্রামের সবচেয়ে কম জনসংখ্যার এই উপজেলার মাত্র ১১টি কেন্দ্রের ৬টিই অতি ঝুঁকিপূর্ন। এরমধ্যে দুটি কেন্দ্র দূর্গম হওয়ায় সেখানে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে। মোট ভোটার ১৫ হাজার ৯শ ৫ জন। লক্ষীছড়ি
এর আগে প্রথম দফায় খাগড়াছড়ির ৬ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ৫ম দফায় আগামী ৩১ মার্চ জেলার সর্বশেষ উপজেলা হিসেবে দীঘিনালায় উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ফুটবলের বিকাশে আসছে ডায়নামিক একাডেমি

পার্বত্য এলাকা রাঙামাটিতে ফুটবলকে আরও জনপ্রিয় করে তোলা, তৃনমূল পর্যায় থেকে ক্ষুদে ফুটবল খেলোয়াড় খুঁজে …

Leave a Reply