নীড় পাতা » বান্দরবান » আলীকদমে ভুট্টার কদর বাড়ছে

আলীকদমে ভুট্টার কদর বাড়ছে

bty

চলতি মৌসুমে বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় সিদ্ধ ভুট্টা বিক্রি করে চলছে চাষীদের জীবন-জীবিকা। অনেকে নিজ জমিতে উৎপাদিত ভুট্টা, সিদ্ধ করে বিক্রি করছেন। আবার অনেকেই চুক্তি মূল্যে অন্যের ভুট্টা বিক্রি করে টাকা রোজগার করছেন। কাঁচা ভুট্টাকে হলুদ এবং লবণ দিয়ে সিদ্ধ করার পর ভুট্টা স্থানীয়ভাবে ‘মক্কাগুলা’ হিসেবে নতুন নামে পরিচিতি পায়। শিশু থেকে শুরু করে কিশোর, যুবক, বৃদ্ধসহ সকলস্তরের নারী-পুরুষের কাছে রয়েছে এ মক্কাগুলার সমান চাহিদা।

সরেজমিনে পরিদর্শনকালে আলীকদম উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার সর্বত্রই ফেরী করে এ সিদ্ধ ভুট্টা বা ‘মক্কা গুলা’ বিক্রি করতে দেখা গেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মক্কাগুলা বিক্রি করে বর্তমানে চলছে অসংখ্য পরিবারের জীবন-জীবিকা। প্রতিদিন হাজার হাজার টাকার মক্কাগুলা বিক্রি হচ্ছে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে। দেশের বিভিন্ন এলাকায় ভুট্টা সাধারণত ভাজি করে খাওয়া কিংবা আটা করে রুটি বানিয়ে খাওয়ার প্রচলন রয়েছে। এছাড়া বর্তমানে দেশ-বিদেশের সর্বত্রই এ ভুট্টা দিয়ে পোল্ট্রি খাদ্য তৈরি হলেও কবে থেকে এতদাঞ্চলে ‘মক্কাগুলা’ নাম দিয়ে সিদ্ধ করে ভুট্টা খাওয়ার প্রচলন শুরু হয়েছে তা সঠিক করে জানা যায়নি।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, তাদের বাবা-দাদার আমল থেকে দেখে আসছেন ভুট্টা সিদ্ধ করে খায়। তারা ভুট্টাকে ‘মক্কাগুলা’ নামেই বেশি চিনেন। ইতিপূর্বে পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর জুমে উৎপাদিত ভুট্টার কদর ছিল মক্কাগুলা নামে। দিনদিন এর চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে সম্প্রতি বছরগুলোতে উপজেলায় হাইব্রিড জাতের ভুট্টার আবাদ শুরু হয়েছে।

আলীকদম উপজেলা উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা অভিজিত বড়–য়া জানান, আলীকদম উপজেলায় ৬২ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে। কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় ১৮০টি প্রদর্শনী প্লান্টের বিপরীতে ৩৫০ জন কৃষককে ভুট্টা বীজ ও প্রয়োজনীয় সার প্রদান করা হয়েছে। ক্রমান্বয়ে এ উপজেলায় ভুট্টা চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সূত্রে জানা গেছে, কেবল খেতেই সুস্বাদু নয়, ভুট্টার রয়েছে নানা পুষ্টিগুণও। প্রতি ১০০ গ্রাম ভুট্টায় ১৯ গ্রাম কার্বোহাইড্রেইট, ২ গ্রাম ফাইবার, ৩ গ্রাম প্রোটিন, ১.৫ এর কম চর্বি এবং ৮৬ ক্যালোরি থাকে। ভুট্টায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে লৌহ বা আয়রন যা রক্তের লোহিত কণার প্রয়োজনীয় খনিজের চাহিদা পূরণ করে। ফলে রক্তশূন্যতা দূর হয়। তবে ভুট্টার কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও রয়েছে বলে জানা গেছে। যেমন ‘ইনজেস্টিবল প্রোটিন’ থাকায় ভুট্টা থেকে অনেক সময় অ্যালার্জি হতে পারে। বেশি পরিমাণে খেলে হজমের সমস্যা দেখা দেয়। কাঁচা ভুট্টা খেলে ডায়রিয়া হতে পারে। অতিরিক্ত ভুট্টা ওজন বৃদ্ধির অন্যতম কারণ।

আলীকদম সদর ইউনিয়নের বাসটার্মিনাল এলাকার সাহাব উদ্দিন বলেন, কম পয়সায় এর থেকে ভালো খাবার নেই। ১০ টাকা দিয়ে একটি মক্কাগুলা খেলে মজা পাওয়া যায়, পেটও ভরে। কম পয়সায় ক্ষুধা নিবারণের জন্য একটি উৎকৃষ্ট খাবার মনে করে আলীকদমের নিম্নআয়ের মানুষদের কাছে সিদ্ধ ভট্টা বা মক্কাগুলার কদর ক্রমেই বাড়ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে এক দিনেই ১১ জনের করোনা শনাক্ত

শীতের আবহে হঠাৎ করেই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলায় করোনা সংক্রমণে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। বিগত কয়েকদিনের …

Leave a Reply