নীড় পাতা » ব্রেকিং » আবার রাজপথে রাবিপ্রবি’র শিক্ষার্থীরা

আবার রাজপথে রাবিপ্রবি’র শিক্ষার্থীরা

rstu-01আন্দোলন যেন পিছু ছাড়ছে না রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(রাবিপ্রবি)। প্রতিষ্ঠার পূর্ব থেকে শুরু করে প্রতিষ্ঠার পরও বিশ্ববিদ্যালয়টির বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আন্দোলন যেন শেষই হচ্ছে না। এবার রাজপথে নামতে বাধ্য হলো রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পক্ষে, বিপক্ষে জেলা, উপজেলায় আন্দোলন হলেও এবার সেই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা নেমেছে স্থায়ী ক্যাম্পাসের দাবিতে। এর আগে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করার জন্যও আন্দোলনে নেমেছিল শিক্ষার্থীরা।

২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের প্রথম ব্যাচ ভর্তির প্রায় চার মাস পরও শ্রেণি কার্যক্রম শুরু না হওয়ায় সেসময়ও শিক্ষার্থীরা রাজপথে নেমেছিল। অবশেষে আন্দোলনের পর গত বছরের ৯ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হয়। শুরু থেকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম ভেদভেদীতে করা হলেও এর শ্রেণি কার্যক্রম চলে শাহ বহুমুখী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুইটি কক্ষে। এখনও একইভাবে শিফটিংয়ের মাধ্যমে শ্রেণি কার্যক্রম চলছে। পর্যাপ্ত কক্ষ ও ল্যাবের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় শিক্ষার্থীরাও পড়েছে দারুণ সমস্যায়। এ থেকে মুক্তি থেকে নিজস্ব ক্যাম্পাসে দ্রুত শ্রেণি কার্যক্রম শুরুর উদ্যোগ নিতে রোববার মানববন্ধন পালন করে শিক্ষার্থীরা। রাঙামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এই মানববন্ধন পালন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র শামসুজ্জামান বাপ্পীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থী সাজিদ হাসান, অপু দে, মুরশিদুল আমিন রিজোয়ান, জহিরুল আলম, মঈনুদ্দীন আহমেদ, শিহাব মাহমুদ, রুবেল মিয়া, ওমর ফারুক, ইসরাত সুলতানা রাহি, ইমাম হোসেন, মঞ্জুরুল আলম, আব্দুল গাফফার।

এই সময় শিক্ষার্থীরা অতিদ্রুত স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের দাবি জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সাজিদ হাসান বলেন, একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হয়েও ন্যূনতম সুযোগ সুবিধাটুকু আমাদের মাঝে নেই। দূরদুরান্ত থেকে উচ্চ শিক্ষার স্বপ্ন নিয়ে এসে আমরা হতাশা হচ্ছি। আমাদের অতিসত্ত্বর নিজস্ব ক্যাম্পাস প্রয়োজন।

শিক্ষার্থী অর্জুন চাকমা বলেন, অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর মত আমাদেরও আধিকার রয়েছে সার্বিক নিরাপত্তা ও ক্যাম্পাসের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করার। আরেক শিক্ষার্থী মানসী চাকমা বলেন, অস্থায়ী ক্যাম্পাস সংলগ্ন এলাকায় আমরা পদে পদে ইভটিজিং ও লাঞ্চনার শিকার হচ্ছি। এখানে আমাদের নূন্যতম নিরাপত্তাটুকুও নেই। তাই অতিদ্রুত ক্যাম্পাস বাস্তবায়নের দাবি জানাচ্ছি।

মঞ্জুরুল কবির বলেন, সামান্যতম আইনি জটিলতায় ক্যাম্পাস নির্মাণের কার্যক্রম বিলম্বিত হবে, এইটা মানা যায় না। আইনি জটিলতা দ্রুত নিষ্পত্তি করে ভূমি অধিগ্রহণের কার্যক্রম শুরু করতে হবে।

শিক্ষার্থী ইমরান আলী বলেন, শিক্ষা-সম্প্রীতি দুটোই আমাদের মাঝে আছে, কিন্তু প্রগতির ধারাকে এগিয়ে নিতে হলে দ্রুত ক্যাম্পাস নির্মাণ করে আমাদের স্বাধীনতাকে সার্বজনীন করতে হবে।

শামসুজ্জামান বাপ্পি বলেন, আমাদের প্রাণের দাবি, আমাদের রাবিপ্রবির স্থায়ী ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাস না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।rstu-02

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঘোষণা দেন, বিশ্ববিদ্যালয় স্থায়ী ক্যাম্পাসের জমি অধিগ্রহণ সম্পর্কিত সুনির্দিষ্ট তথ্য না দেওয়া পর্যন্ত শ্রেণিকার্যক্রম ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী প্রশাসনিক কার্যালয় ভেদভেদী অফিসের সামনে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ০২টা পর্যন্ত অবস্থান ধর্মঘট পালন করা হবে। সর্বশেষে, স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের জন্য রাঙামাটিবাসির সহযোগিতা কামনা করেছেন, অতি দ্রুত ক্যাম্পাস নির্মাণের সহযোগিতা চেয়ে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।

এর আগে বৃহস্পতিবার একই দাবিতে সারাদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে নিজের কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছিলো শিক্ষার্থীরা।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ জানান, ভূমি অধিগ্রহণের টাকা গত জানুয়ারি মাসেই জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে। এখন জেলা প্রশাসক কার্যালয় পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। জেলা প্রশাসক কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার আসামি বন্দুকযুদ্ধে নিহত

রাঙামাটিতে নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার আসামি অর্পন …

3 comments

  1. নিজের দাবি অাদায়ে যদি শিক্ষার্থীদের রাস্তায় নামতে হয় তাহলে এখান থেকেই সহজে অনুমেয় অামাদের শিক্ষার্থীরা কতটা সুযোগ-সুবিধার মধ্যে অাছে। :-/ >_<
    এ বছর থেকে তৃতীয় ব্যাচ শুরু হবে অথচ এখনও কোন স্থায়ী ক্যাম্পাস নাই।

  2. সমস্যা জেনেই তো শিক্ষর্থীরা ভর্তি হয়েছে,

Leave a Reply

%d bloggers like this: