নীড় পাতা » ব্রেকিং » আত্মহননের হুমকি রাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের

আত্মহননের হুমকি রাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের

pic-01আমাদের জীবন থেকে একটি বছর হারিয়ে যাচ্ছে, এর জন্য আমাদেরকে ভবিষৎতে অনেক সমস্যায় পড়তে হবে। ইতিমধ্যে আমাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। তাই যদি এক সপ্তাহের মধ্যে ক্লাস চালু না হয় তবে প্রতীক অনশন, অবস্থান ধর্মঘট, আমরণ অনশন করতে বাধ্য হবো। যদি এতেও শ্রেণি কার্যক্রম শুরু না হয় তবে আত্মহননের হুমকিদেন রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের আয়োজনে রাঙামাটি কাঠ ব্যবসায়ি সমিতির হল রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে রাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা এসব কথা বলেন।

এতে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যাল শিক্ষার্থীদের সংগঠন রাবিপ্রবি ছাত্র আন্দোলন সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক মোঃ শামসুজ্জামান বাপ্পির লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নাজমুন হাসান, হাবিবুর রহমান, ইমরান আলী, জহিরুল ইসলাম ও হুমায়ন কবির।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হয়। জানুয়ারী দুইটি বিভাগের কার্যক্রম শুরুর উদ্যোগ নেয় রাবিপ্রবি প্রশাসন। কম্পিউটার সাইয়েন্স এবং ব্যবস্থাপনা বিভাগে ৫০ জন করে মোট ১০০ জন ভর্তির নির্দেশিকা দেয়। এপ্রিলের ২৪ তারিখে শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এবং কৃতকার্য শিক্ষার্থীরা ভর্তি হয়। জুলাইয়ের ১৫ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম শেষ হয়। দুইটি শাখায় মোট ৭৩ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়। তার পরে শুরু হয় শ্রেণি কার্যক্রম শুরুর অপেক্ষা।

তিনি আরো বলেন, আমরা শ্রেণি কার্যক্রম ঠিক সময়ে শুরু না হওয়ার কারণে বিভিন্ন ভাবে মানববন্ধন, জেলা প্রশাসন এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত আমাদের ক্লাস চালু হয়নি। আমাদেরকে রাবিপ্রবি এর ভিসি আশা দিয়েছিলো ঈদুল আজহার পরে সেপ্টেম্বরে ক্লাস চালু হবে। সেপ্টেম্বর মাস যাওয়ার পরে অক্টোবরের ১১ তারিখে জেলা প্রশাসন রাঙামাটি পার্বত্য জেলার সামনে আমরা ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও পুনরায় স্মারকলিপি প্রদান করি শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করার জন্য। তারপর আবারো আশ্বস্ত হই অক্টোবরের শেষের দিকে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হবে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত আমরা ক্লাস শুরু হবে এমন কোন নোটিশ পায় নি। আদৌ ক্লাস শুরু হবে কিনা বুঝতে পারছি না।

আমরা যেকোন স্থানে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করতে আগ্রহী দাবি করে তিনি আরো বলেন, আমাদেরকে যেখানে বলবে আমরা সেখানে ক্লাস করতে পারবো। প্রয়োজনে খোলা আকাশের নিচে গাছ তলায় করতেও রাজি।

তাদের জীবন থেকে একটি বছর শেষে হয়ে যাচ্ছে বলে তারা বলেন, আমাদের জীবন থেকে একটি বছর হারিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের অন্য সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ এর শিক্ষা বর্ষ শিক্ষার্থীরা প্রথম সেমিস্টার শেষ করে দ্বিতীয় সেমিস্টারের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে আর আমরা এখনো ক্লাস করতে পারিনি।
শিক্ষার্থীদের এই অবস্থায় তাদের পাশে রাঙামাটি সকল স্থরের সচেতন নাগরিক সমাজ, মানবাধিকার কমিশন, সুশীল সমাজকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে এক দিনেই ১১ জনের করোনা শনাক্ত

শীতের আবহে হঠাৎ করেই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলায় করোনা সংক্রমণে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। বিগত কয়েকদিনের …

Leave a Reply

%d bloggers like this: