আজ রাঙামাটি ছাত্রলীগের সম্মেলন

BSL-coverআজ রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন। ২০১০ সালের ৩০ জুলাই সবশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেই সম্মেলনের মাধ্যমে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করে কমিটি গঠিত হলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন পায় তারও প্রায় এক বছর পরে। আর নেতৃত্বে আসে নতুন মুখ। প্রায় পাঁচ বছর পূর্বে সেই সম্মেলনের পর আজ ২ জুন জেলা ছাত্রলীগের আরেকটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনকে ঘিরে রাঙামাটি শহরের উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। প্রার্থীরা শেষ দিনে কাউন্সিলদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন। সহযোগিতা চেয়েছেন অন্য সব নেতাদেরও। সাথে নিয়েছেন ‘দাদা’ দীপংকর তালুকদারেরও আশির্বাদ। এছাড়া গতকাল শহরে দুই ছাত্রলীগ সভাপতি প্রার্থী এমএন কাউসার রুমি ও শাহনেওয়াজ সুমন তাদের সমর্থকদের নিয়ে আলাদাভাবে রাঙামাটি শহরে বর্ণাঢ্য মোটর শোভাযাত্রা পালন করে। এছাড়া সন্ধ্যায় ৩, ৪ ও ৫ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের উদ্যোগে সম্মেলন উপলক্ষে তবলছড়ি এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করা হয়। এক কথায় ছাত্রলীগের সম্মেলন নিয়ে রাঙামাটি শহর উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।

সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সূত্র জানায়, সম্মেলনকে ঘিরে ইতোমধ্যে রাঙামাটির বিভিন্ন উপজেলা থেকে কাউন্সিলর ও শুভ্যার্থীরা জেলায় এসেছেন। কাছের উপজেলা কাপ্তাই, রাজস্থলী, কাউখালী ও নানিয়ারচর থেকে সকালে বাস নিয়ে কাউন্সিলররা সম্মেলনে যোগ দেবে। ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটে ইতোমধ্যে বিশাল প্যান্ডেলের কাজ শেষ হয়েছে। সম্মেলনে প্রায় দেড় থেকে দুই হাজার নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করবেন। প্রায় ৪৫০ কাউন্সিল দ্বিতীয় অধিবেশনের কাউন্সিলে অংশ নেবেন। এই নিয়ে রাঙামাটি শহরসহ উপজেলার সর্বত্র উৎসব লক্ষ্য করা গেছে। বিশেষ করে সভাপতি প্রার্থীদের মোটর শোভাযাত্রা শহরবাসী রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে উপভোগ করেছেন। বিকেলে সভাপতি প্রার্থী শাহনেওয়াজ সুমন,এমএন কাউসার রুমি ও সাধারন সম্পাদক প্রকাশ চাকমার সমর্থকরা এসব মোটর সাইকেল শোভযাত্রা বের করে। আরেক সভাপতি প্রার্থী সাইফুল আলম রাশেদের সমর্থকরা মোটর সাইকেল বহর নিয়ে বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা কাউন্সিলরদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করে। সব মিলিয়ে পুরো শহর যেনো উৎসবে মেতেছে।

গত কয়েকটি কমিটির ধারাবাহিকতায় ও জেলার বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে জানা যায়, সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারের পছন্দানুসারে সভাপতি ও সম্পাদক বাছাই করা হবে। তাই যতই কাউন্সিলদের মন জয় করুক না কেন ‘দাদা’র গুড বুকে যার নাম নেই, তার এই দুইটি পদের যেকোনো একটিতে আসা কঠিন হয়ে পড়বে।

ইতোমধ্যে সভাপতি পদে সিভি জমা দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক এম এন কাউসার রুমি, শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম রাশেদ, কলেজ ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি সজল দাশ, সদস্য শাহনেওয়াজ সুমন, উপ-বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক জয় প্রকাশ দত্ত, উপ-ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ ইকবাল(রাহুল), নানিয়ারচর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মামুন ভূঁইয়া।

এদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে সিভি জমা দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক রুবেল চৌধুরী, উপ-স্কুল ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক প্রকাশ চাকমা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবির চন্দ্র ঘটক, সদ্য বিদায়ী কলেজ কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সালাউদ্দীন টিপু।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মোস্তফা নওশাদ সারোয়ার সম্মেলন প্রস্তুতি শেষ হয়েছে জানিয়ে বলেন, অন্যান্যবারের তুলনায় এবার আমরা ভালো একটি সম্মেলন উপহার দিতে যাচ্ছি। সম্মেলনে ৪৫০ কাউন্সিলরসহ প্রায় দুই হাজার নেতৃবৃন্দ অংশ নেবেন। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ইতোমধ্যে রাঙামাটি অবস্থান করছেন। তিনি ভালোভাবে সম্মেলন শেষ করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বর্তমান জেলা যুবলীগের সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, জেলার তৃণমূল পর্যায়ে সৎ ও যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে দলের জন্য ত্যাগ ও শ্রম দেওয়া প্রকৃত ছাত্ররাই যাতে ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে স্থান পায় সেদিকে গুরুত্ব দিতে হবে। আর যারাই নেতৃত্বে আসবে, তারা আমাদের নেতা দীপংকর তালুকদারের যোগ্য নেতৃত্বে ও দলের সংবিধানের প্রতি আস্থা রেখে কাজ করে যাবেন আমি আশা করছি। নতুন নেতৃত্ব কোনো কারণে যাতে টেন্ডারবাজির সাথে যুক্ত না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তিনি আরো বলেন, দীপংকর তালুকদার যেহেতু আমাদের সাংগঠনিক নেতা তাই অতীতে ছাত্রলীগের যেসব কমিটি হয়েছে, তাতে তাঁর মতামত গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি যেসব কমিটি গঠনে মতামত দিয়েছেন, তাতে যোগ্য নেতৃত্ব উঠে এসেছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে ভূমিকম্পে মসজিদে ফাটল

রাঙামাটিতে ভূমিকম্পে শহরের ঝুল্লিক্যা পাহাড়ের নির্মাণাধীন সংযোগ সেতু জোড়ায় এবং ৩য় তলা বিশিষ্ট মসজিদের বিভিন্ন …

Leave a Reply