নীড় পাতা » আলোকিত পাহাড় » ‘আওয়ামীলীগ চুক্তি করেছে, তারাই চুক্তি বাস্তবায়ন করবে’

শান্তি চুক্তির বর্ষপূর্তির আলোচনা সভায় চিনু

‘আওয়ামীলীগ চুক্তি করেছে, তারাই চুক্তি বাস্তবায়ন করবে’

‘আওয়ামীলীগ সরকারের আগে অনেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি করার চেষ্টা করেছে কিন্তু পারেনি। উল্টো তারা পার্বত্য এলাকার মানুষের মাঝে দূরুত্ব সৃষ্টি করেছে দিনের পর দিন। তবে আওয়ামীলীগ সরকারের ক্ষমতাকালে পার্বত্য মানুষের কথা মাথায় রেখে পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি করেছে। আওয়ামীলীগ সরকার এ চুক্তি করেছে, তারাই এটা বাস্তবায়ন করবে। আগামীতে যদি আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আছে, তাহলে চুক্তির বাকি অংশও বাস্তবায়িত হয়ে যাবে।’

পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২১তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু। রবিবার সকালে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্টিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথির চিনু আরও বলেন, ‘সন্তু লারমা বলছেন সরকার অসত্য প্রচার করছে। চুক্তি বাস্তবায়নে সরকার আন্তরিক নয়। পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ জানে এবং তারা নিজেরা বুঝতে পারছে চুক্তি কতটুকু বাস্তবায়ন হয়েছে। কারণ চুক্তি বাস্তবায়নের সুফল তারা ইতোমধ্যে ভোগ করছে। চুক্তির ৪৮টি ধারা বাস্তবায়ন হয়ে গেছে। বাকি যেগুলো আছে, তাও অতিদ্রুত বাস্তবায়ন হয়ে যাবে। ৯টি ধারা বাস্তবায়নের পথে। যদি তা বাস্তবায়ন হয়ে যায়, তাহলে আর কোনও কথা থাকবে বলে মনে হয় না। অন্যগুলোও ঠিক সময়ে বাস্তবায়ন হয়ে যাবে।’

‘চুক্তি আম গাছের আম নয়’- এমন মন্তব্য করে এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘চুক্তি আম গাছের আম নয় যে পেকেছে পেড়ে খেয়ে ফেলবেন। এটা বাস্তবায়ন করতে সময় লাগে এবং একটি নিয়ম অনুসারে ধাপে ধাপে বাস্তবায়ন করতে হয়।’

প্রধানমন্ত্রী পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে আন্তরিক এমন মন্তব্য করে চিনু বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের কোনও বিল গেলে প্রধানমন্ত্রী সরাসরি বলে দেন দিয়ে দাও। আওয়ামীলীগ সরকারের সময় পার্বত্য জেলায় যত উন্নয়ন হয়েছে, তা আগের কোনও সরকার করতে পারেনি।’ এসময় পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন এবং চুক্তি বাস্তবায়নে সকলের আন্তরিক হওয়ার জন্য আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

সভায় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এস এম শফি কামাল, রাঙামাটি সদর জোন কমান্ডার লে. কর্নেল মোহাম্মদ রেদওয়ানুল ইসলাম, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য মো. জানে আলম, সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালুকদার, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, প্রবীণ সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন- রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেক আহমেদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের জনসংযোগ কর্মকর্তা অরুনেন্দু ত্রিপুরা।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্যবাসীর কথা চিন্তা করে পাহাড়ে স্থায়ী সমাধানের লক্ষে এই পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল। এই মহান চুক্তির ধারাগুলো তিনি আন্তরিকতার সাথে বাস্তবায়ন করছে । তিনি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী পাহাড়ের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিচ্ছে এবং তা বাস্তবায়ন করছে। সরকারের চুক্তি ও উন্নয়নে বাধাগ্রস্থ না করে সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর জন্য তিনি আহ্বান জানান।

আলোচনা সভার আগে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন অতিথিরা। চুক্তির ২১তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে রবিবার সন্ধ্যায় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ ও সেনা রিজিয়ন এর আয়োজনে রাঙামাটি চিং হ্লা মং মারি স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হয় ‘সম্প্রীতি কনসার্ট’।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রামগড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি

খাগড়াছড়ির রামগড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণসহ নানা অপকর্মে লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। …

Leave a Reply