নীড় পাতা » পাহাড়ে নির্বাচনের হাওয়া » আওয়ামীলীগের প্রার্থী বীর বাহাদুর, স্বতন্ত্র প্রার্থী হবেন প্রসন্ন !

আওয়ামীলীগের প্রার্থী বীর বাহাদুর, স্বতন্ত্র প্রার্থী হবেন প্রসন্ন !

Bandarban-Awamilig-Picপার্বত্য জেলা বান্দরবানের একমাত্র সংসদীয় আসনটিতে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বীর বাহাদুর। আসনটি হাত ছাড়া হওয়ার শঙ্কায় বিএনপি নির্বাচনে না গেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা। দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার অপরাধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নিলেও দুঃখ থাকবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামীলীগ সভাপতি। বুধবার জেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়ন পত্র কেনার টাকাও জমা দিয়েছেন তিনি। নির্বাচনী শর্তগুলি মেনে বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা মনোয়নপত্র সংগ্রহ করবেন বলে জানাগেছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে আওয়ামীলীগের প্রার্থী চূড়ান্ত সভায় বান্দরবানে বীর বাহাদুরের দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক সাদেক হোসেন চৌধুরী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকেও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান বীর বাহাদুরের সহকারী একান্ত সচিব সাদেক হোসেন চৌধুরী বান্দরবান, রাঙামাটি এবং খাগড়াছড়ি তিন পার্বত্য জেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করার কথা লিখেছেন।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, দলের বাইরে যাবার যেহেতু সুযোগ নেই। বীর বাহাদুর’কে মনোনয়ন দিলে আসনটি ধরে রাখার লক্ষ্যে সংগঠনের স্বার্থে কাজ করবো। তবে বিএনপি নির্বাচনে না গেলে আসনটি হাত-ছাড়া হওয়ার শঙ্কায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে দাঁড়াবো। স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার কারণে দল থেকে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নিলে নেবে। তাতে আমার কোনো দু:খ থাকবে না। জনগন চাইলে আমি নির্বাচন করতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত। মনোনয়নপত্র কেনার টাকা জমা দিয়েছি। বৃহস্পতিবার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোয়নপত্র সংগ্রহ করবেন বলেও জানান তিনি।

এদিকে বিএনপি নির্বাচনে গেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আওয়ামীলীগ নেতা প্রসন্ন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার জয়লাভের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতারা। নাম প্রকাশে অনিশ্চুক আওয়ামীলীগের কয়েকজন নেতাও জানান, আওয়ামীলীগের অন্তকোন্দলের কারণে বিগত স্থানীয় নির্বাচনে জেলার ২টি পৌরসভা, উপজেলা নির্বাচনে আলীকদম, থানছি, সদর তিনটি উপজেলায় বিএনপি ও রুমা উপজেলায় জেএসএস প্রার্থী জয়ী হয়েছে। মাত্র দুটি উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থী। একইভাবে ইউনিয়ন নির্বাচনগুলোতে আওয়ামীলীগের একই অবস্থা দেখাগেছে। সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামীলীগের সুবিধাভোগী কয়েকজন নেতার আচরণের খারাপ প্রভাব পড়ার শঙ্কা রয়েছে বলেও মন্তব্য তাদের

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে ২৯ মণ্ডপে শুরু শারদীয় দুর্গোৎসব

বান্দরবান জেলায় ২৯টি মণ্ডপে পাঁচ দিনব্যাপী হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হয়েছে। উৎসবকে ঘিরে জেলার …

Leave a Reply