নীড় পাতা » পৌরসভা নির্বাচন ২০১৫ » আওয়ামীলীগের প্রার্থী হচ্ছেন কে ?

আওয়ামীলীগের প্রার্থী হচ্ছেন কে ?

ALএবারের পৌর নির্বাচনে রাঙামাটিতে কে পাচ্ছেনিআওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন তা নিয়ে চলছে সর্বত্রই নানান জল্পনা কল্পনা। ক্ষমতাসীন দলটি এবার জয়ী হওয়ার জন্যও বেশ তৎপর। ইতেমধ্যেই দলটির মনোনয়ন পেতে মাঠে নেমেছেন পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী মোঃ সোলায়মান চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল মতিন, জেলা যুবলীগ সভাপতি মোঃ আকবর হোসেন চৌধুরী, সাবেক পৌর মেয়র মোঃ হাবিবুর রহমান, সাবেক শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুজ্জামান মহসিন রোমান। এরা প্রত্যেকেই যে যার মতো করে চেষ্টা তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন।

Solymanআওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আছেন পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী মোঃ সোলায়মান চৌধুরী। বাবার বনেদী ও সজ্জন মানুষ হিসেবে ইমেজ আর নিজের আর্থিক প্রতিপত্তির কারণে দল এবং স্থানীয় মানুষের কাছে ভীষণ পরিচিত তিনি। আবার দান খয়রাত ও সহযোগিতার হাতও সবার জন্য অবারিত। নিজের পারিবারিক ব্যবসার পাশাপাশি জেলার বৃহত্তম ও প্রভাবশালী ব্যবসায়ী সংগঠন কাঠ ব্যবসায়ী সমিতিরও সভাপতি তিনি। ফলে কাঠ ব্যবসায়ি ও কাঠ ব্যবসার সাথে জড়িত করাত কল শ্রমিকদের একটি বড় অংশের সমর্থন পাবেন তিনি। আবার রাঙামাটির চন্দনাইশ বাসিদের ঐক্যের ইতিহাস পুরনো ও প্রমাণিত। সোলায়মান চৌধুরীর পূর্বপুরুষ চন্দনাইশবাসি হিসেবেও তিনি পাবেন এই বাড়তি সুবিধা। অন্যদিকে একাধিকবার পৌর আওয়ামীলীগের নির্বাচিত সভাপতি হিসেবে পৌর আওয়ামীলীগের প্রায় সবগুলো ইউনিটও তার পক্ষেই কথা বলেছে এবং পৌর আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে তাকে প্রার্থী করার প্রস্তাবও করেছে। ফলে আপাতত এগিয়েই আছেন তিনি। তবে পৌর আওয়ামীলীগ তার পক্ষে একাট্টা হলেও জেলা বা সদর থানা কিংবা অন্যান্য সহযোগি সংগঠন ঠিক ততটা নয়। তবে মনোনয়ন লড়াইয়ে তিনি জোরেসারেই বিবেচিত হচ্ছেন।Untitled-1-copy

Akbor-Hossein-Chyরাঙামাটি জেলা যুবলীগ সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরীও রয়েছেন মনোনয়নের দৌঁড়ে। রাঙামাটি কলেজ সভাপতি হয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতিও ছিলেন। এছাড়াও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। স্কুলজীবন থেকেই আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত তরুণ এই নেতার সাথে দলের হাই কমান্ডের সাথে রয়েছে ঘনিষ্ট যোগাযোগ। ফলে দলের যে কোনো কাজে ও সিদ্ধান্তে তাঁর অংশগ্রহণও থাকে চোখে পড়ার মত। রাজনীতির মাঠে ‘চেক এন্ড ব্যালেন্স’র তুখোড় খেলোয়াড় আকবর হোসেন চৌধুরীর প্রার্থী হওয়াটার সম্ভাবনা বেশ। ফলে ভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মীদের কাছেও সমাদৃত তিনি। রাঙামাটি আওয়ামীলীগের আগামী দিনের কর্ণধার ভাবা হয় তাকে। তবে বয়সে নবীন হওয়ায় এবং নানা বাস্তবতায় তার পক্ষে যেমন অসংখ্যা নেতাকর্মীরা আছেন, তেমনি বিপক্ষে থাকারাও সুযোগ বুঝে তাকে বেকায়দায় ফেলতে প্রস্তুত। কিন্তু মনোনয়ন পাওয়া এবং বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী আকবর ও তাঁর সমর্থকরা।

Abdul-Matinদলের আরেক হেভিওয়েট নেতা আবদুল মতিনও আছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায়। সর্বশেষ পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে পরাজিত এই নেতা বর্তমানে জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। সেই সময় জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকও ছিলেন তিনি। সামাজিক ব্যক্তি এবং মিষ্টিভাষি হিসেবে শহরে তাঁর যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। সাধারন লোকজনের কাছে ভালো মানুষ হিসেবে পরিচিত আব্দুল মতিন ব্যক্তি ইমেজের কারণে নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখেই দলীয় হাই কমান্ড তাঁকে মনোনয়ন দিতে পারেন এমনটাই ধারণা করছেন কেউ কেউ। তবে আগের নির্বাচনে পরাজিত হওয়ায় তাকে মনোনয়ন না দেয়ার সম্ভাবনা যেমন আছে, তেমনি একই কারণে দেয়ার সম্ভাবনাও সমানভাবে বিদ্যমান।

মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায় রয়েছেন শহর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহীদুজ্জামান মহসিন রোমানও। এক সময়ের শহর দাপিয়ে বেড়ানো এই তরুণ দীর্ঘদিন রাজনীতির মাঠে অনুপস্থিত থাকলেও অটোরিক্সা চালক সমিতির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়ে আবারো সরব হয়ে উঠেছেন। মরহুম বাবা হাজি মহসিনের ইমেজ এবং সদা হাস্যোজ্জল রোমানের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়ার মত নয়। তবে বিগত পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ভোটের অংকে সর্বশেষ অবস্থানে থাকা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে জেলা পরিষদ সদস্য হওয়া মনিরুজ্জামান মহসিন রানার ছোট ভাই তিনি, এটা তার জন্য একটা মাইনাস পয়েন্ট হলেও নিজের পুরনো রাজনৈতিক অতীত আর পরিবহন শ্রমিকদের নেতা হিসেবে তৈরি হওয়া নতুন পরিচিতিকে কাজে লাগাতে তৎপর রোমান ইতোমধ্যেই কিছু আওয়ামীলীগ নেতাকেও নিজের করে নিতে পেরেছেন, এটা হয়তো তার জন্য আশীর্বাদ হতে পারে।Roman

মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায় বেশ ভালো ভাবেই রয়েছেন দুই বারের পৌর মেয়র মোঃ হাবিবুর রহমানও। বর্তমানে আওয়ামীলীগের দলীয় কোনো পদ-পদবিতে না থাকলেও আওয়ামীলীগ নেতা হিসেবেই পরিচিত তিনি। রাজনৈতিক জটিল চাল বুঝেন ও দিতে পারেন তিনি। আওয়ামীলীগের একটি অংশ তাঁর প্রার্থীতার ব্যাপারে যথেষ্ট সংবেদনশীল। কারণে দলীয় মনোনয়নটা তাঁর কপালেও জুটতে পারে বলে মনে করছেন কেউ কেউ। অভিজ্ঞতা আর রাজনৈতিক ‘কূটচাল’- সিদ্ধহস্ত তিনি। তবে সর্বশেষ নির্বাচনে অংশ না নিয়ে মেয়র পদ থেকে বিদায় নেয়ার পর রাঙামাটিতে অনুপস্থিতি, দলের কার্যক্রম থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেয়া, দাদা দীপংকরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় কটুকথা ও অপপ্রচার করা, নিজের পুরো পরিবারকে রাঙামাটির বাইরে স্থানান্তর এবং মাঝে মাঝে রাঙামাটি আসা ও থাকার ঘটনায় তাকে নিয়ে বিব্রত আওয়ামীলীগের একটি অংশও। দীর্ঘদিন বাইরে থেকে আবার এসে ভোটের মাঠে নামাটাকেও ভালোভাবে নিচ্ছে না কেউ কেউ। তবে বিজয়ী হওয়ার ছক ও কৌশল বিবেচনায় এবং তার ‘বাঙালিভিত্তিক’ জাতীয়বাদী ইমেজকে ব্যবহার করে নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চাইছে আওয়ামীলীগের একটি অংশ। সেই বিবেচনায় তার প্রার্থী হওয়াটা অস্বাভাবিক নয়।Habibur-Rahman-22266-

সোলায়মান, আকবর, মতিন, হাবিব এবং রোমান আছেন ভোটের মাঠে নামার আগে দলীয় সমর্থন পাওয়ার লড়াইয়ে। যে যার মতো করেই চেষ্টা করছেন। কিন্তু নেপথ্যে খেলবেন এবং সিদ্ধান্ত নিবেন রাঙামাটি আওয়ামীলীগের ‘প্রাণপুরুষ’ দাদা দীপংকর তালুকদারই। তিনি কিছু ‘যদি..কিন্তু…’সমীকরণকে বিবেচনায় নিবেন, ভাবছেন রাঙামাটি আওয়ামীলীগ ও নিজের রাজনৈতিক ভবিষ্যতও। পাশাপাশি যোগবিয়োগ করবেন পার্বত্য রাজনীতির জটিল ও কূটিলতায় প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তির সমীকরণেরও। সঙ্গত কারণে, শুধু প্রার্থীর যোগ্যতা কিংবা অভিজ্ঞতা অথবা জনপ্রিয়তাই আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাওয়ার একমাত্র মানদন্ড হবে না, আরো কিছু বিষয় এবং সংশ্লিষ্টতা গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক হবে, এখানে দলটির মনোনয়ন প্রাপ্তিতে।

রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মোঃ মুছা মাতব্বর বলেন, আমরা পাঁচজন প্রার্থীর আগ্রহের কথা জানি। তিন তারিখের আগেই আমরা সিদ্ধান্ত নিবো, কে হবেন আমাদের প্রার্থী। প্রার্থী বিবেচনার ক্ষেত্রে তার অতীত, দলের জন্য ত্যাগ এবং কে বিজয়ী হতে পারবেন, এই বিষয়গুলো গুরুত্ব সহকারেই বিবেচনায় নিবো আমরা। পাঁচজনই আমাদের দলের নেতা এবং তারা প্রত্যেকেই যোগ্য। এদের যেকোন একজনকেই হয়তো প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিতে পারি আমরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে বিজ্ঞান মেলা

‘তথ্য প্রযুক্তির সদ্বব্যবহারঃ আসক্তি রোধ’ প্রতিপাদ্য বিষয়ের আলোকে ৪২তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ উপলক্ষে …

Leave a Reply