নীড় পাতা » ব্রেকিং » অসহযোগে নারী হেডম্যানদের সহযোগিতা চাইলেন সন্তু

অসহযোগে নারী হেডম্যানদের সহযোগিতা চাইলেন সন্তু

Untitled-1সরকার গত ১৮ বছরেও শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করেনি এমন অভিযোগ করে পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান ও জনসংহতি সমিতির সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা সন্তু বলেছেন,পার্বত্য চট্টগ্রামে এখনো সেনা শাসন চলছে। এখনো জেলা প্রশাসক এবং ইউএনওরা ১৯০০ সনের শাসনবিধির বদৌলতে ঔপেনেবিশক শাসন চালাচ্ছে।’ তিনি জনসংহতি সমিতির চলমান অসহযোগ আন্দোলনে হেডম্যান কার্বারীদের পাশাপাশি নারীদেরও এগিয়ে আসার আহবান জানান।

মঙ্গলবার রাঙামাটিতে প্রথমবারের মত আয়োজিত পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী হেডম্যান-কার্বারী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন তিনি।

সকালে সিএইচটি হেডম্যান নেওয়ার্কের সভাপতি কংজরী চৌধুরীর সভাপতিত্বে রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠী ইনষ্টিটিউটে সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধি প্রিয় ওরফে সন্তু লারমা। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার রাজা দেবাশীষ রায়।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, ইউএনডিপি সিএইচটিডিএফের উপ পরিচালক প্রসেনজিত চাকমা, সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্কের সাধারন সম্পাদক শান্তি বিজয় চাকমা। অনুষ্ঠানে নারী হেডম্যানদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন শান্তনা চাকমা। এছাড়া ৩ পার্বত্য জেলা থেকে সম্মেলনে হেডম্যান কার্বারীরা যোগদান করেন।

সম্মেলনে ১৫৯ জন নারী হেডম্যান ও কার্বারীর পাশাপাশি পুরুষরাও যোগ দেন। বুধবার সম্মেলন শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, পাহাড়ের প্রথাগত নেতৃত্বের অংশ হিসেবে সরকার গ্রাম প্রধান বা হেডম্যান এবং পাড়াপ্রধান বা কার্বারি নিয়োগ দিয়ে থাকে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে কঠোর প্রশাসন

নভেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও মাস্ক ব্যবহারে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে প্রতিদিনের ন্যায় বুধবারও রাঙামাটিতে …

Leave a Reply