নীড় পাতা » পার্বত্য পুরাণ » অরণ্য জননীর প্রতি…

অরণ্য জননীর প্রতি…

picc
ছিয়াছির দিনগুলো তাদের তাড়িয়ে বেড়ায় ভীষণ
তারা দৌড়ুতে থাকে দিক-বিদিক
একদিকে অবিশ্বাসী শীতল নলের
হিংসার আগুন
তার পেছনে সাম্প্রদায়িকতার রুদ্ররোষ।

তোমরা দৌড়ুতে থাকো
অন্ধকারে পাহাড়,পিচ্ছিল ছড়ায়
চেঙ্গীপাড়ের ভঙ্গুল পলিতে।

তোমাদের কপাল থেকে ঝড়ে পড়ে ঘামের ফোঁটা
তোমাদের উদ্বেগ উৎকন্ঠার স্পর্শ চিহ্ন
তোমাদের ভয়ার্ত চিৎকারে
তোমাদের নির্ভয়ে বেঁচে থাকার আকুতি
তোমাদের বাড়ী-ঘর,ভিটে-মাটি,জুম-জমি
সব কিছু খর্ব করেছে আমাদের সভ্যতা মুখোশ।

তোমাদের নাগরিক আগ্রাসন ছিনিয়ে নিয়েছে
চাকমার নাপ্পির গন্ধভরা মোচা ভাতের রঙ
মারমার শুকর গোশতের তেলভর্তি লোভের গোলাপ
ত্রিপুরার পড়া তামাকের ধোঁয়া, হুকোর ঘোলা জল
পিনন খাদির রঙিন নেশাভরা দেচোয়ানির গ্লাস
গভীর মিলনের প্রাথমিক পর্ব
দেহের কোমল সুন্দরকে নাকে শোঁকা
আরো কিছু ব্যক্তিগত আনন্দ।

হে আমরা জ্বলে পুড়ে খাঁক হওয়া ১৯৮৬ সাল
হে আমার অনিশ্চিত শরনার্থী শিবির জীবন
হে আমার বিপ্লবের বহুশ্রত অসত্য ভাষণ
হে আমার আবাল্য প্রেয়সী অরণ্য জননী….

এ তামাটে পাহাড়ের নীলাভ চুঁড়া
বগালেক দেবতাপুকুর আলু টিলার গুহা
চেঙ্গী মাইনি কাচালং মাতামুহুরি শংখের জলে
বৈসাবি গড়াইয়া পানি খেলা গেংখুলি জমানো কোলাহল

উড়িয়ে দাও শ্বেত পতাকা শান্তি ও অহিংসার
মানবিক প্রেম পাহাড় ও মানুষে প্রণতি বারবার।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

নানিয়ারচর সেতু : এক সেতুতেই দুর্গমতা ঘুচছে তিন উপজেলার

কাপ্তাই হ্রদ সৃষ্টির ৬০ বছর পর এক নানিয়ারচর সেতুতেই স্বপ্ন বুনছে রাঙামাটি জেলার দুর্গম তিন …

Leave a Reply