অপারেশন বন্ধের দাবি ইউপিডিএফ সমর্থিত চার সংগঠনের

updfপার্বত্য চট্টগ্রামে পূর্ণস্বায়ত্ত্বশাসনের দাবিতে আন্দোলনরত পাহাড়ীদের সংগঠন ইউপিডিএফ এর চার সহযোগি সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘ বুধবার এক যুক্ত বিবৃতিতে অবিলম্বে খাগড়াছড়ির রামগড়সহ চার উপজেলায় চলমান কম্বিং অপারেশনের নামে ‘গণহয়রানি, নির্যাতন ও ঘেরাও-তল্লাশী’ বন্ধের দাবি জানিয়েছে।

বিবৃতিতে চার সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘গত ৩০ আগস্ট রাত থেকে রামগড়, মাটিরঙ্গা, মানিকছড়ি ও লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার বিস্তীর্ণ পাহাড়ি এলাকায় একযোগে অপারেশন চালানো হচ্ছে। উক্ত এলাকায় সম্প্রতি ভূমি বেদখলের বিরুদ্ধে সাধারণ পাহাড়িরা সংগঠিতভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলার পর ভীতি-সন্ত্রাস সৃষ্টি ও তাদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধকে দুর্বল করে দেয়ার লক্ষ্যে এই অপারেশনের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলেও দাবি করেন তারা।

বিবৃতিতে কয়েকটি ঘটনাকে দৃষ্টান্ত হিসেবে উল্লেখ করে সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, ‘অপারেশনের নামে নিরীহ লোকজনকে ‘হয়রানি-নির্যাতন ও বাড়িঘরে তল্লাশী’কে দেশের সংবিধানে বর্ণিত মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী’।
চার সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘ভূমি বেদখলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা কোন অপরাধ হতে পারে না। পার্বত্য চট্টগ্রামে পাহাড়িরা তাদের জমি নিয়ে সুখে শান্তিতে বাস করতে চায়। সরকারের দায়িত্ব ভূমি বেদখল প্রতিরোধ করা ও ভূমি বেদখলকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা। কিন্তু সরকার বার বার সেটা করতে ব্যর্থ হওয়ায় পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি বেদখলের ঘটনা বেড়ে চলেছে।’

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি থুইক্যচিং মারমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি মাইকেল চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের সভাপতি সোনালী চাকমা।

গনতান্ত্রিক যুব ফোরামের দপ্তর সম্পাদক রিপন চাকমার সাক্ষরে ইমেইলে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিবৃতির বিষদ তথ্য জানিয়েছে সংগঠনগুলো।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply