নীড় পাতা » পাহাড়ে নির্বাচনের হাওয়া » অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ ঊষাতনের

অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ ঊষাতনের

Usatan-Pic-01আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রতিপক্ষের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো ও রাঙামাটি আসনে কারচুপির শংকার কথা জানিয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী উষাতন তালুকদার।

বৃহস্পতিবার রাতে শহরের উত্তর কালিন্দিপুর বিজন স্মরনীর ব্যক্তিগত নির্বাচনী কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিং-এ তিনি এমন আশংকার কথা জানান। এ সময় তার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান উদয়ন ত্রিপুরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচনে যাতে কোন কারচুপি হতে না পারে তার জন্য সংবাদকর্মীদের তীক্ষè নজর রাখার আহবান জানিয়ে উষাতন তালুকদার
দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন যাতে অবাধ ও সুষ্ঠু ভোট গ্রহন হতে পারে সে জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিতেও প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান । বিভিন্ন স্থানে হাতির পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা এবং নির্বাচনী কাজে বাধা সৃষ্টির অভিযোগও করেন উষাতন তালুকদার। সম্প্রতি রিজার্ভবাজারে একজন প্রার্থী নির্বাচনী প্রচারনাকালে তার বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক প্রচারণা ও ব্যক্তিচরিত্র হনন করে বক্তব্য দেয়ার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে উষাতন তালুকদার বিষয়টিকে নির্বাচনী আচরণ বিধির সুস্পষ্ট লংঘন বলেও অভিযোগ করেন।

তিনি অভিযোগ করেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি একজন অসাম্প্রদায়িক মনের মানুষ হলেও তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তিনি বলেন নির্বাচনের গণসংযোগ চালানোর সময় তিনি পাহাড়ি বাঙ্গালী সকল ভোটারের কাছে অভূতপূর্ব সাড়া পেয়েছেন। নির্বাচিত হলে তিনি এ অঞ্চলের সকল মানুষের জন্য কাজ করার কথা বলেন।

উষাতন তালুকদার জানিয়েছেন রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলা এবং কাউখালি ও বাঘাইছড়ির কিছু অংশে একজন স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের হুমকি ও বাধার কারণে ওই এলাকাগুলো বাদে তিনি অন্যান্য সকল উপজেলায় প্রচারণা ও গণসংযোগ করেছেন।

তিনি নির্বাচিত হলে বাঙালীদের পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে চলে যেতে হবে এমন অপপ্রচারে বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করে উষাতন তালুকদার বলেন,একজন নির্বাচিত এমপি’র কি এমন ক্ষমতা যে তিনি এমন কাজ করবেন ? সরকার তাহলে কি জন্য আছে ?

এখন পর্যন্ত নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের আচরণ নিরপেক্ষ মন্তব্য করে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে প্রশাসনকে শেষ পর্যন্ত নিরপেক্ষ থাকার আহ্বান জানিয়ে উষাতন তালুকদার বলেন,আমার কালো টাকাও নেই,পেশি শক্তিও নেই। সারাজীবন গণমানুষের রাজনীতি করেছি,মানুষও সেই বিশ্বাস আর ভালোবাসার প্রতিবাদ দিবে,এমন বিশ্বাস আমার রয়েছে।

কোনো প্রার্থীর সাথে সমঝোতা হয়েছে কিনা কিংবা হওয়ার সম্ভাবনা আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ঊষাতন তালুকদার জানান, সমঝোতার হলে আগেই হতো। তবে এখন সমঝোতার আর কোনো সম্ভাবনা নেই বলে তিনি সাফ জানিয়ে দেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

মহিলা কাউন্সিলর হলেন জোসনা-নির্মলা ও জুবায়তুন

রাঙামাটি পৌরসভার ৯ ওয়ার্ডকে তিনভাগে বিভক্ত করে সৃষ্ট তিনটি নারী ওয়ার্ডে কাউন্সিলর হিসেবে যথাক্রমে নির্বাচিত …

Leave a Reply